ঢাকা ০৯:৫৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীপুরে ঈদ পুনর্মিলনী ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত ঢাকার বুকে মাগুরা জেলার প্রতিনিধিত্বকারী এক গর্ব ও অহংকারের নাম মাগুরা লায়ন্স ক্রিকেট ক্লাব শ্রীপুরে সবুজ আন্দোলনের ঈদ সামগ্রী বিতরণ বিআরটিসির বাসেও চলছে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় সৌদির সঙ্গে কাল বাংলাদেশেও হতে পারে ঈদ শ্রীপুরে দেশ ও প্রবাসী সমন্বয় কল্যাণ তহবিলের ঈদ সামগ্রী বিতরণ বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানাল ফায়ার সার্ভিস চৌদ্দগ্রামে আলকরা প্রবাসী কল্যাণ’র উদ্যাগে ইমাম খতিবদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ফ্রিতে সিম কিনে বিপাকে অর্ধশত পরিবার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন ছাত্র উপদেষ্টার দায়িত্ব হস্তান্তর
ব্রেকিং নিউজ ::

 ৭কলেজের ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু: ২১ মার্চ ২০২৪,আবেদন শেষ: ২৫ এপ্রিল ২০২৪ * এ বছর জনপ্রতি ফিতরার হার সর্বনিন্ম ১১৫ টাকা এবং সর্বোচ্চ ২৯৭০ টাকা *

আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর দেওয়া নামে প্রতারণা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৪০:৫৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪
  • / ৩৬০১ বার পড়া হয়েছে
বাংলাদেশের বার্তা অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

লক্ষ্মীপুরে সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা দাবি ও প্রতারণার দায়ে দুই নারী এনজিও কর্মীকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুর রহমান তার কার্যালয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এনজিও কর্মী সুমাইয়া জান্নাত ও ফাতেমা বেগমকে এক মাসের কারাদণ্ড দেন।দণ্ডপ্রাপ্ত সুমাইয়া সদর উপজেলার মান্দারী ইউনিয়নের দক্ষিণ মান্দারী গ্রামের মো. আনোয়ারের স্ত্রী ও ফাতেমা একই এলাকার মো. শামছুর স্ত্রী। দণ্ডপ্রাপ্তদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোতাহের আলী ও খুরশিদ আলম বাংলাদেশের বার্তা’কে বলেন, দীর্ঘ ১ বছর থেকে ভুয়া এনজিওর দুই নারী কর্মী ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের সহজ-সরল অসহায় নারীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তারা প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের ঠিকানা (ঘর) দিবে বলে এ টাকা নেয়। এনজিও’র নারী কর্মী সুমাইয়া জান্নাত ও ফাতেমা বেগমের কাছ থেকে এনজিও’র নাম ব্যবহার করে আশ্রয়ণ প্রকল্প (ঘর) দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়টি জানতে চাইলে তাদের কথাবার্তা সন্দেহ হয়। তাৎক্ষণিক বিষয়টি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউএনও স্যারকে আমরা অবহিত করলে তারা উপজেলা পরিষদে নিতে বলেন অভিযুক্ত দুই নারীকে।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুর রহমান বলেন, এনজিও’র নাম করে ওই দুই নারী দুই হাজার ৭শ’ গ্রাহকের প্রায় ১০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে। এছাড়া তারা প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাইয়ে দেয়ার নামে কয়েকজনের কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তারা নিজেদের দোষ স্বীকার করায় তাদের এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর দেওয়া নামে প্রতারণা

আপডেট সময় : ০৭:৪০:৫৪ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

লক্ষ্মীপুরে সরকারি আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাইয়ে দেওয়ার নাম করে টাকা দাবি ও প্রতারণার দায়ে দুই নারী এনজিও কর্মীকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যা সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুর রহমান তার কার্যালয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে এনজিও কর্মী সুমাইয়া জান্নাত ও ফাতেমা বেগমকে এক মাসের কারাদণ্ড দেন।দণ্ডপ্রাপ্ত সুমাইয়া সদর উপজেলার মান্দারী ইউনিয়নের দক্ষিণ মান্দারী গ্রামের মো. আনোয়ারের স্ত্রী ও ফাতেমা একই এলাকার মো. শামছুর স্ত্রী। দণ্ডপ্রাপ্তদের জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

ভবানীগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোতাহের আলী ও খুরশিদ আলম বাংলাদেশের বার্তা’কে বলেন, দীর্ঘ ১ বছর থেকে ভুয়া এনজিওর দুই নারী কর্মী ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডের সহজ-সরল অসহায় নারীদের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তারা প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের ঠিকানা (ঘর) দিবে বলে এ টাকা নেয়। এনজিও’র নারী কর্মী সুমাইয়া জান্নাত ও ফাতেমা বেগমের কাছ থেকে এনজিও’র নাম ব্যবহার করে আশ্রয়ণ প্রকল্প (ঘর) দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার বিষয়টি জানতে চাইলে তাদের কথাবার্তা সন্দেহ হয়। তাৎক্ষণিক বিষয়টি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউএনও স্যারকে আমরা অবহিত করলে তারা উপজেলা পরিষদে নিতে বলেন অভিযুক্ত দুই নারীকে।

সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আরিফুর রহমান বলেন, এনজিও’র নাম করে ওই দুই নারী দুই হাজার ৭শ’ গ্রাহকের প্রায় ১০ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছে। এছাড়া তারা প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর পাইয়ে দেয়ার নামে কয়েকজনের কাছ থেকে ৬০ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। তারা নিজেদের দোষ স্বীকার করায় তাদের এক মাসের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।