ঢাকা ১০:৪৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৫ মে ২০২৪, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শাহজালাল বিমানবন্দরে ৫ কোটি টাকার স্বর্ণ জব্দ চৌদ্দগ্রামে উপজেলা পর্যায় শ্রেষ্ঠ শ্রেণী শিক্ষক সামছুদ্দিন আহমেদ ইরান রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে শোক বই “জাকের পার্টি চেয়ারম্যানের” পক্ষে শোক প্রকাশ শ্রীপুরে ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দিয়ে শিক্ষকের চিঠি প্রতিবাদ করায় পিতাকে কুপিয়ে জখম হেলিকপ্টার বিদ্ধস্ত হয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট নিহত ‘জাকের পার্টি চেয়ারম্যানের”শোক কীভাবে বিধ্বস্ত হলো ইরানি প্রেসিডেন্ট রাইসির হেলিকপ্টার? হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত ইরানের প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ‌’মারা গেছেন’ ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসির মৃত্যু নিয়ে অবশেষে মুখ খুললো ইসরায়েল চৌদ্দগ্রামে ছালেহ আহম্মেদের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন শ্রীপুরে নবীজীকে কটুক্তি করাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত
সংবাদ শিরোনাম ::
শাহজালাল বিমানবন্দরে ৫ কোটি টাকার স্বর্ণ জব্দ চৌদ্দগ্রামে উপজেলা পর্যায় শ্রেষ্ঠ শ্রেণী শিক্ষক সামছুদ্দিন আহমেদ ইরান রাষ্ট্রদূতের বাসভবনে শোক বই “জাকের পার্টি চেয়ারম্যানের” পক্ষে শোক প্রকাশ শ্রীপুরে ছাত্রীকে কু-প্রস্তাব দিয়ে শিক্ষকের চিঠি প্রতিবাদ করায় পিতাকে কুপিয়ে জখম হেলিকপ্টার বিদ্ধস্ত হয়ে ইরানের প্রেসিডেন্ট নিহত ‘জাকের পার্টি চেয়ারম্যানের”শোক কীভাবে বিধ্বস্ত হলো ইরানি প্রেসিডেন্ট রাইসির হেলিকপ্টার? হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত ইরানের প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ‌’মারা গেছেন’ ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসির মৃত্যু নিয়ে অবশেষে মুখ খুললো ইসরায়েল চৌদ্দগ্রামে ছালেহ আহম্মেদের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও ফাঁসির দাবিতে মানববন্ধন শ্রীপুরে নবীজীকে কটুক্তি করাকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে পুলিশসহ অর্ধশতাধিক আহত

কুমিল্লায় অভিযানের ভয়ে হাসপাতাল বন্ধ করে পালিয়েছে সবাই

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:১৯:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ অক্টোবর ২০২৩
  • / ৩৬১১ বার পড়া হয়েছে
বাংলাদেশের বার্তা অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি।

হাসপাতালের নেই কোন লাইসেন্স। এমন খবরে হাসপাতালে শুরু হয় অভিযান। কিন্তু অভিযানের ভয়ে হাসপাতাল বন্ধ করে পালিয়ে গেছে সবাই, কিন্তু হাসপাতাল খালি পরে আছে। নেই অভ্যর্থনাকারী। না আছে কোন চিকিৎসক। না আছে কোন নার্স বা প্যাথলজিস্ট, জ্বলছিলনা কোন লাইট। যেন ভুতের আস্তানা। অথচ গতকালও এই হাসপাতালে রোগীর চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল। এমন ঘটনা কুমিল্লার একটি হাসপাতালের। নাম কুইন্স ডিজিটাল হাসপাতাল লিমিটেড।

মঙ্গলবার (৩ অক্টোবর) কুমিল্লার নগরীর টমছম ব্রিজ এলাকার এই হাসপাতালে স্বাস্থ্য বিভাগ ও জেলা প্রশাসনের অভিযানে এমন ভয়াবহ জালিয়াতির কথা সামনে আসে। পরে হাসপাতালটিকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করে সিলগালা করা হয়।

সূত্র জানায়, হাসপাতালটির কোন লাইসেন্স কিংবা অনুমতিপত্র ছিল না। নিয়ম না মেনেই সাত তলা আবাসিক ভবনের পাঁচটি ফ্লোরের ফ্ল্যাট গুলোকে কেবিন ও ওয়ার্ড বানিয়ে কুইন্স ডিজিটাল হাসপাতাল নামের কথিত এই সেবা কেন্দ্র খোলা হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরে নগরীর এই গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় কোন ডিউটি ডাক্তার ছাড়াই চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিল। হাসপাতালে অভিযানে ভয়ে সকাল থেকেই হাসপাতাল কতৃপক্ষ হাসপাতাল রেখে পালিয়ে যায়। যদিও ভববের কেয়ারটেকার বলছেন তিন মাসের ভাড়া বকেয়া থাকায় তাদের চলে যেতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার অভিযানের সময়ও কাউকে পাওয়া যায়নি। হাসপাতালে ছিল না কোন রোগী বা চিকিৎসক অথবা দায়িত্বরত কোন কর্মকর্তা। পুরো ভবনের কেয়ারটেকার হাসপালের সামনে বসে ছিলেন। এসময় বিভিন্ন মাধ্যমে সহযোগিতা নিয়ে ওই হাসপাতাল কতৃপক্ষকে ডেকে এনে এর কারণ জিজ্ঞেস করা হয়। পরে কোন কাগজপত্র না দেখাতে পারায় দুই লাখ টাকা জরিমানা ও প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করা হয়।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. মেহেদী হাসান ও ডা. মো. আবদুল কাইয়ুম। অভিযানে নেতৃত্ব দেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ইমদাদুল হক তালুকদার।
সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. মেহেদী হাসান জানান, হাসপাতালটি অনুমতি ছাড়া অস্ত্রোপচার, রোগী ভর্তি, বিভিন্ন পরীক্ষা নিরিক্ষা চালিয়ে আসছিল। এছাড়াও হাসপাতালে গিয়ে কোন ডিউটি ডাক্তার বা কতৃপক্ষকে পাওয়া যায় নি। এমন অভিযোগে তাদের দুই লাখ টাকা জরিমানা ও প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করা হয়। স্বাস্থ্য বিভাগের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্র্যাট ইমদাদুল হক জানান, অভিযান পরিচালনাকালে কুইন্স হাসপাতাল তাদের বৈধতার কোন কাগজ দেখাতে পারিনি তাই তাদেরকে জরিমানা ও সিলগালা করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

কুমিল্লায় অভিযানের ভয়ে হাসপাতাল বন্ধ করে পালিয়েছে সবাই

আপডেট সময় : ০৩:১৯:৪৫ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩ অক্টোবর ২০২৩

কুমিল্লা জেলা প্রতিনিধি।

হাসপাতালের নেই কোন লাইসেন্স। এমন খবরে হাসপাতালে শুরু হয় অভিযান। কিন্তু অভিযানের ভয়ে হাসপাতাল বন্ধ করে পালিয়ে গেছে সবাই, কিন্তু হাসপাতাল খালি পরে আছে। নেই অভ্যর্থনাকারী। না আছে কোন চিকিৎসক। না আছে কোন নার্স বা প্যাথলজিস্ট, জ্বলছিলনা কোন লাইট। যেন ভুতের আস্তানা। অথচ গতকালও এই হাসপাতালে রোগীর চিকিৎসা দেয়া হয়েছিল। এমন ঘটনা কুমিল্লার একটি হাসপাতালের। নাম কুইন্স ডিজিটাল হাসপাতাল লিমিটেড।

মঙ্গলবার (৩ অক্টোবর) কুমিল্লার নগরীর টমছম ব্রিজ এলাকার এই হাসপাতালে স্বাস্থ্য বিভাগ ও জেলা প্রশাসনের অভিযানে এমন ভয়াবহ জালিয়াতির কথা সামনে আসে। পরে হাসপাতালটিকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করে সিলগালা করা হয়।

সূত্র জানায়, হাসপাতালটির কোন লাইসেন্স কিংবা অনুমতিপত্র ছিল না। নিয়ম না মেনেই সাত তলা আবাসিক ভবনের পাঁচটি ফ্লোরের ফ্ল্যাট গুলোকে কেবিন ও ওয়ার্ড বানিয়ে কুইন্স ডিজিটাল হাসপাতাল নামের কথিত এই সেবা কেন্দ্র খোলা হয়েছিল। দীর্ঘদিন ধরে নগরীর এই গুরুত্বপূর্ণ এলাকায় কোন ডিউটি ডাক্তার ছাড়াই চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছিল। হাসপাতালে অভিযানে ভয়ে সকাল থেকেই হাসপাতাল কতৃপক্ষ হাসপাতাল রেখে পালিয়ে যায়। যদিও ভববের কেয়ারটেকার বলছেন তিন মাসের ভাড়া বকেয়া থাকায় তাদের চলে যেতে বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার অভিযানের সময়ও কাউকে পাওয়া যায়নি। হাসপাতালে ছিল না কোন রোগী বা চিকিৎসক অথবা দায়িত্বরত কোন কর্মকর্তা। পুরো ভবনের কেয়ারটেকার হাসপালের সামনে বসে ছিলেন। এসময় বিভিন্ন মাধ্যমে সহযোগিতা নিয়ে ওই হাসপাতাল কতৃপক্ষকে ডেকে এনে এর কারণ জিজ্ঞেস করা হয়। পরে কোন কাগজপত্র না দেখাতে পারায় দুই লাখ টাকা জরিমানা ও প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করা হয়।

অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. মেহেদী হাসান ও ডা. মো. আবদুল কাইয়ুম। অভিযানে নেতৃত্ব দেন কুমিল্লা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ইমদাদুল হক তালুকদার।
সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিক্যাল অফিসার ডা. মো. মেহেদী হাসান জানান, হাসপাতালটি অনুমতি ছাড়া অস্ত্রোপচার, রোগী ভর্তি, বিভিন্ন পরীক্ষা নিরিক্ষা চালিয়ে আসছিল। এছাড়াও হাসপাতালে গিয়ে কোন ডিউটি ডাক্তার বা কতৃপক্ষকে পাওয়া যায় নি। এমন অভিযোগে তাদের দুই লাখ টাকা জরিমানা ও প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করা হয়। স্বাস্থ্য বিভাগের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

সিনিয়র নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্র্যাট ইমদাদুল হক জানান, অভিযান পরিচালনাকালে কুইন্স হাসপাতাল তাদের বৈধতার কোন কাগজ দেখাতে পারিনি তাই তাদেরকে জরিমানা ও সিলগালা করা হয়েছে।