• সারাদেশ

    মিয়ানমারকে বিনয়ের সাথে বলব, এইসব বন্ধ করুনঃ স্বপন

      প্রতিনিধি ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ , ১১:৪৯:১৫ প্রিন্ট সংস্করণ

    আজিজ উদ্দিন।।

    আপনাদের ভিতর অনেক শৃংখলা আছে বলে আমি বিশ্বাস করি। আপনারা সকলে আলোচনা করে সুন্দর সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য বাংলাদেশ আওয়ামী ও আমি সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে আপনাদের স্যালূট জানান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগের দায়িত্ব প্রাপ্ত) ও জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন।

    তিনি বলেন, ৫০বছর আগে দেশ দুর্ভিক্ষে ছিলো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জননেত্রী শেখ হাসিনার আমলে আমরা আজ কেউ না খেয়ে থাকি না। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমানে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আজ থেকে বিশ বছর আগে দেশে অনেকে দুপুরের খাবার খাদ্যঅভাবে বিকালে খেয়েছে বর্তমানে কেউ দুপুরের খাবার বিকালে খায় না এখন।

    সেটা শত্রুর চোখে দেখা যায় না। বিভিন্ন দেশে যোদ্ধ হয়েছে, তাদের দেশের চেয়ে আমাদের দেশ অনেক এগিয়ে গেছে। আমার পাশের দেশ মিয়ারমান। সম্পতি তারা আমাদের সাথে লেগেছে। আমি মিয়ারমানকে অনুরোধ করব বিনয়ের সাথে, আপনারা এইসব বন্ধ করুন।

    আপনারা যদি এইসব করেন, তাহলে আমাদেরও তা করতে হবে। আপনাদের মগের মল্লুকের সমস্যা আপনাদের ভেতর রাখুন, আমাদের কাছে সমস্যা জানানোর দরকার নেই। আপনারা যদি এইসব করেন, তাহলে আপনারাও ক্ষতিগ্রস্ত হবেন। আমরা চাই আপনারাও শান্তিতে থাকুন, ভারতও শান্তিতে থাকুক। আমরাও শান্তিতে থাকি। আমাদের সকলকে দ্বন্দের থেকে বের হয়ে এসে দলের শৃঙ্খলা রক্ষায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

    রবিবার কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের আওতাধীন টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্য দিতে গিয়ে মঞ্চে উপস্থিত স্থানীয় নেতাদের প্রতি মিয়ানমারের প্রতি ক্ষুদ্ধ হয়ে তিনি এই সব মন্তব্য করেন।

    প্রায় ১০ বছর পর অনুষ্ঠিত হয়েছে টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন। এতে সভাপতি পদে প্রার্থী হয়েছেন সাবেক ছাত্রনেতা আলহাজ্ব মোঃ নুরুল বশর ও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী হয়েছেন মাহবুব মুর্শেদ। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী না থাকায় তাঁরা দু’জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন।

    টেকনাফ পাইলট স্কুলের মাঠে অনুষ্ঠিত সম্মেলন সকাল ১০টার দিকে জাতীয় সংগীত, জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে আরম্ভ হয়। বিনাপ্রতিদন্ধিতায় সভাপতি সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়াই কাউন্সিল অধিবেশনে কাউন্সিলদের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকেরর নাম ঘোষণা দেওয়া হয়।

    সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. সিরাজুল মোস্তফা।

    কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের উপ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোঃ আমিনুল ইসলাম।

    সম্মেলন উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী।

    প্রধান বক্তা হিসেবে ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান।

    সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার সদর আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল।

    সম্মেলনে সাবেক ছাত্রনেতা ব্যারিষ্টার প্রশান ভূষণ বড়ুয়া ও জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ সম্মানিত অতিথি হিসেবে অনেকে বক্তব্য প্রদান ও উপস্থিত ছিলেন।

    http://এইচ/কে

    আরও খবর

                       

    জনপ্রিয় সংবাদ