• আলোকিত মূখ

    শিশুশ্রম, বাল্যবিবাহ, যৌতুক, ইভটিজিং ও নারীর প্রতি সহিংসতা/ প্রতিরোধে স্বপ্নজাল

      প্রতিনিধি ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ , ৭:০৩:১৯ প্রিন্ট সংস্করণ

    আজিজ উদ্দিন॥

    কক্সবাজারে মানবতার সংগঠন নামে পরিচিত স্বপ্নজাল। স্থানীয় পর্যায়ে অন্যতম একটি স্বেচ্ছাসেবী ও সমাজ উন্নয়নমূলক সংস্থা হিসেবে ২০১৮ ইং সাল থেকে কক্সবাজার জেলার পথশিশু, শ্রমজীবী শিশু।

    ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় বসবাসরত সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের সুরক্ষা, সামাজিক উন্নয়নে শিক্ষা, প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা, শিশু অধিকার ও আইন, বাল্যবিবাহ ও নারীদের প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে গণসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে উঠান বৈঠক ও বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে।

    গত ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ ইং তারিখে কক্সবাজার পৌরসভার ১নং ওয়ার্ডের উত্তর কুতুবদিয়া পাড়ায় স্বপ্নজাল মহিলা গ্রুপের সকল সদস্যদের অংশগ্রহণে উঠান বৈঠকের আয়োজন করেন স্বপ্নজাল।

    উক্ত উঠান বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন স্বপ্নজালের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক মোঃ শাকির আলম। তিনি সকলের উদ্দেশ্যে বলেন জেলে এলাকার সবচেয়ে পিছিয়ে। আমরা সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের সুরক্ষা ও অধিকার নিশ্চিত করতে চেষ্টা করছি আপনাদের সহযোগিতা দরকার।

    শিশুদের জন্য আমরা স্কুল করেছি যেন শিশুরা শিক্ষায় আলোকিত হতে পারে। ট্রেনিং সেন্টার করেছি যেন আপনারা বা আপনার সন্তানেরা কারিগরি প্রশিক্ষণ – কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, সেলাই মেশিনের চালানো দক্ষতা, হস্ত শিল্প ও বহুমুখী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টি ও স্বাবলম্বী করে তোলায় আমাদের লক্ষ্য।

    প্রোগ্রাম অফিসার, নাজমুল ইসলামের আলোচনায় বলেন কোভিড-১৯ মহামারির কারণে অতিরিক্ত হারে শিশুশ্রম বৃদ্ধি পেয়েছে এবং বাল্যবিবাহের মাত্রাও বেড়েছে এর জন্য দায়ী আমাদের অভিভাবকদের অসচেতনতা তাই আমাদের সচেতন হতে হবে।

    শিশুশ্রম ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে গণসচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে যে আপনাদের সন্তানেরা অল্প বসয়ে ঝুকিপূর্ণ অবস্থায় জীবন নষ্ট না হয়। শিশুদের জন্য ঝুকিপূর্ণ ৩৮টা খাত থেকে আরো একটি খাত শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় নারী ও শিশুশ্রম শাখার প্রজ্ঞাপন জারি করেন ২৯ এপ্রিল ২০২২ ইং।

    যে কারনে ঝুকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে –
    ১। দীর্ঘ সময় ধরে কাজ করা
    ২। সরাসরি সূর্যের তাপে দীর্ঘ সময় কাজ করা
    ৩। রাসায়নিক দ্রব্য নিয়ে কাজ করা
    ৪। ধারালো যন্ত্রপাতি ব্যবহার করা
    ৫। নিরাপত্তা সরঞ্জাম ব্যতীত কাজ করা
    ৬। অস্বাস্থ্যকর ও বিপজ্জনক পরিবেশে কাজ করা
    শুটকি খাতে শিশুশ্রমের কারনে শারীরিক, মানসিক ও পারিপার্শ্বিক প্রভাব দেখা যায়।

    যেমনঃ- ক্যান্সার,জ্বর,সর্দি, কাশি,বিভিন্ন রকম চর্মরোগ, ডায়রিয়া ও যক্ষা,নাজমুল ইসলাম আরো বলেন শুটকি খাতে ঝুকিপূর্ণ কাজে শিশুদের না পাঠিয়ে স্কুলমূখী করার জন্য সকল অভিভাবকদের সচেতন হতে হবে।

    প্রতিটি শিশুর রয়েছে শিক্ষার অধিকার। মতামতের ও প্রশ্ন উত্তরের মাধ্যমে উঠান বৈঠকের সভা সমাপ্ত হয়।

    http://এইচ/কে

    আরও খবর

                       

    জনপ্রিয় সংবাদ