• দূর্ঘটনা

    সদরপুরে লবণপার্টির দৌরাত্ম প্রতারনার শিকার ফুলি বেগম | বাংলাদেশের বার্তা 

      প্রতিনিধি ২৮ জানুয়ারি ২০২৩ , ১:২৪:৫৩ প্রিন্ট সংস্করণ

    সোবাহান সৈকত, সদরপুর (ফরিদপুর)প্রতিনিধি 

    হ্যান্ডসেক পার্টি, অজ্ঞান পার্টি, মলম পার্টি, গামছা পার্টি, মরিচ পার্টির নাম শুনলেও  এবার  ফরিদপুরের সদরপুরে বেশ কিছুদিন যাবৎ লবণপার্টির নাম শোনা যাচ্ছে এবং প্রায়ই সদরপুরের বিভিন্ন এলাকায় লবণের প্যাকেট ধরিয়ে সাধারণ মানুষের স্বর্বস্ব লুট করে নিচ্ছে একাধিক প্রতারকচক্র।

    গতকাল উপজেলার আকোটের চর ইউনিয়নের নলেরটেক গ্রামের ফুলি বেগম জানান উপজেলা সদরের পুকুরপাড়ে তিনজনের একটি পুরুষদল তাকে ঘিরে ধরে। খুব ভদ্রভাবে লবণের একটি প্যাকেট তার হাতে দিয়ে বলে আপা একটু ধরেন।

    কিছু বোঝার আগেই ভুক্তভোগী হেলেধুলে পড়ে গেলে তার কানের দুল খুলে দিতে বলে এবং সে কানের দুল প্রতারকচক্রকে দিয়ে দেয়। স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে এলে ভুক্তভোগী বুঝতে পারে সে প্রতারণার শিকার হয়েছে। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, একটি চক্রে তিন থেকে চারজন প্রতারক সংঘবদ্ধ হয়ে প্রতারণার কাজ করে। জানা গেছে, এই প্রতারকচক্র পাশের উপজেলা ভাঙ্গা এবং মাদারীপুর ও শরীয়ত পুর জেলার বিভিন্ন এলাকার।

    উল্লেখ্য, লবণের প্যাকেটে এমন কিছু কেমিক্যাল মেশানো থাকে যে কোন মানুষ ঐ লবণের প্যাকেট ধরলেই সেন্সলেস হয়ে যায়, তখন প্রতারকের আদিষ্ট হয়ে কাজ করে। সংগে থাকা নগদ টাকা , সোনার গহনা, মোবাইল ফোন স্বেচ্ছায় প্রতারকের হাতে তুলে দেয়। এই কাজগুলো ঘটে উপজেলা পুকুরপাড়, শিশুপার্ক, হাসপাতালের গেট, কাজীবাড়ি কুমপাড়।

    নয়রশি কুমপাড়, ব্যাংকগুলোর আশে পাশে, বাজারের ভেতর, মনিকোঠা বাজার, আকটের চর, চন্দ্রপাড়া, কৃষ্ণপুর বাজার, পিঁয়াজখালী ও বাবুরচর বাজার এলাকার আশেপাশে। লবণপার্টির এই দৌরাত্ম জনমনে আতঙ্ক তৈরী করেছে। কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশ প্রশাসনের আশু পদক্ষেপ গ্রহণ এখন সময়ের দাবী।

    আরও খবর

                       

    জনপ্রিয় সংবাদ