ঢাকা ০৪:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ২২ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজ ::
বাইশরশি বিশ্ব জাকের মঞ্জিলে জাকের পার্টির ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে গাঁজা-ইয়াবা উদ্ধার, কথিত সাংবাদিকসহ আটক ১৩ স্বাধীনতার আগে মারা যাওয়া ব্যক্তিকে ২০১৫ সালে ঋণ দিয়েছে কৃষি ব্যাংক মানবপাচার মামলায় : নৃত্যশিল্পী ইভানের বিরুদ্ধে প্রতিবেদন ৩ জুলাই ধার্য করেছে আদালত  কে কোন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পেলেন মোদির মন্ত্রিসভায়? নীলফামারীর ডিমলায় ৭০০কৃষকের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন কালীগঞ্জে গৃহহীন ও ভুমিহীনদের মাঝে জমিসহ ঘড় হস্তান্তর যে কারণে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদের লেগ বিফোরে চার রান যোগ হয়নি মিয়ানমারের গুলি’তে খাদ্য সংকটে সেন্টমার্টিনবাসী,নৌ চলাচল বন্ধ  “দৌলতখানে আইস ফ্যাক্টরীর এ্যামোনিয়া গ্যাস বিস্ফোরণ”নিহত ২ আহত ১৮ জন

কোটিপতি পুলিশ কর্মকর্তার কোটিপতি স্ত্রী 

বাংলাদেশের বার্তা
  • আপডেট সময় : ০৬:০২:৩২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩
  • / ৯৬০২ বার পড়া হয়েছে
বাংলাদেশের বার্তা অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি হামিদুল আলম মিলনের স্ত্রী শাহাজাদী আলম লিপি। বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) প্রথমবারের মতো স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন।

বিভিন্ন সময় তিনি বলেছেন, একটি জেলার সব এমপি তাঁর পকেটে থাকে। তাই এমপি পদের লোভে নয়, তিনি রাজনীতিতে আসতে চান জনগণের সেবা করতে। লিপির এমন বক্তব্যের ভিডিওগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। ঢাকঢোল পিটিয়ে শত শত গাড়ি, মোটরসাইকেল নিয়ে মহড়া দিতে গিয়ে তিনি খরচ করেছেন বিপুল টাকা। হলফনামায় নিজেকে কোটিপতি ব্যবসায়ী হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

আলোচিত প্রার্থী লিপির স্বামী বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশে অতিরিক্ত ডিআইজি। তিনি ৩ কোটি ৫৬ লাখ টাকার সম্পদের মালিক। হলফনামার তথ্য অনুযায়ী, সারিয়াকান্দি হাটশেরপুর এলাকার বাসিন্দা লিপির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম মেধা এন্টারপ্রাইজ। আয়ের উৎস হিসেরে কৃষি খাত থেকে বছরে ৫০ হাজার ২০০ টাকা পান বলে উল্লেখ করেছেন। তাঁর স্বামীর কৃষি খাত থেকে আয় হয় ৪ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। লিপি বাড়ি ভাড়া পান ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা, তাঁর স্বামী পান ৬ লাখ ১ হাজার। স্বামীর চাকরি থেকে বছরে আয় হয় ৯ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। অন্যান্য খাতে স্বামীর কোনো আয় না থাকলেও লিপি আয় করেন ৫৭ হাজার টাকা।

অস্থাবর সম্পত্তির মধ্যে লিপির নগদ টাকা ২৮ লাখ ৪৮ হাজার। তাঁর স্বামীর কাছে নগদ টাকা ২ কোটি ১৩ লাখ ৮৯ হাজার। পুলিশ কর্মকর্তা মিলনের ব্যাংকে ৪১ হাজার ৯১৭ টাকা আছে। লিপির আছে ১২ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। লিপির চেয়ে তাঁর স্বামী বেশি অলংকার ব্যবহার করেন।লিপির ১০ তোলা অলংকার থাকলেও স্বামী ব্যবহার করেন ৫০ তোলা।

হলফনামায় উল্লেখ করা হয়েছে, লিপির ২৫৯ দশমিক ৬৯ শতক জমি আছে, যার দাম ৪৪ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। তাঁর স্বামীর কৃষিজমি আছে ১২১৪ শতক। এই জমির দাম ৪ লাখ টাকা। এ ছাড়া লিপির ১০১ দশমিক ৫৭ শতক অকৃষি জমি আছে, যার দাম ২৬ লাখ ১০ হাজার টাকা। তাঁর স্বামীর ২৫২ দশমিক ৫৩৬ শতক অকৃষি জমি আছে। এর মূল্য ১ কোটি ১৫ লাখ টাকা।

স্থাবর সম্পদের মধ্যে লিপির আছে একটি পাচতলা দালান। এটি হেবা সূত্রে পাওয়া বলে উল্লেখ করেছেন। আছে নির্মাণাধীন আরও একটি বাড়ি। রয়েছে তিনটি দোকান। লিপির স্বামীর রয়েছে একটি পাঁচতলা দালান, একটি আধাপাকা বাড়ি। তবে এগুলো হেবা বা দান সূত্রে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ কারণে কোনো মূল্য উল্লেখ করা হয়নি।

শাহাজাদী আলম লিপি বলেন, ‘আমি ব্যবসা করি। ব্যবসা থেকে কোটিপতি হয়েছি। এলাকায় বেশ আগে থেকেই প্রচার চালাই এই তথ্যটিও সত্য। তবে এলাকার মানুষ ভালোবেসে এসব প্রচারের টাকা খরচ করে। আমাদের কোনো টাকা খরচ করতে হয় না।’ এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

কোটিপতি পুলিশ কর্মকর্তার কোটিপতি স্ত্রী 

আপডেট সময় : ০৬:০২:৩২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২৩

পুলিশের অতিরিক্ত ডিআইজি হামিদুল আলম মিলনের স্ত্রী শাহাজাদী আলম লিপি। বগুড়া-১ (সারিয়াকান্দি-সোনাতলা) প্রথমবারের মতো স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছেন।

বিভিন্ন সময় তিনি বলেছেন, একটি জেলার সব এমপি তাঁর পকেটে থাকে। তাই এমপি পদের লোভে নয়, তিনি রাজনীতিতে আসতে চান জনগণের সেবা করতে। লিপির এমন বক্তব্যের ভিডিওগুলো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। ঢাকঢোল পিটিয়ে শত শত গাড়ি, মোটরসাইকেল নিয়ে মহড়া দিতে গিয়ে তিনি খরচ করেছেন বিপুল টাকা। হলফনামায় নিজেকে কোটিপতি ব্যবসায়ী হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

আলোচিত প্রার্থী লিপির স্বামী বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশে অতিরিক্ত ডিআইজি। তিনি ৩ কোটি ৫৬ লাখ টাকার সম্পদের মালিক। হলফনামার তথ্য অনুযায়ী, সারিয়াকান্দি হাটশেরপুর এলাকার বাসিন্দা লিপির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের নাম মেধা এন্টারপ্রাইজ। আয়ের উৎস হিসেরে কৃষি খাত থেকে বছরে ৫০ হাজার ২০০ টাকা পান বলে উল্লেখ করেছেন। তাঁর স্বামীর কৃষি খাত থেকে আয় হয় ৪ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। লিপি বাড়ি ভাড়া পান ৩ লাখ ৬০ হাজার টাকা, তাঁর স্বামী পান ৬ লাখ ১ হাজার। স্বামীর চাকরি থেকে বছরে আয় হয় ৯ লাখ ৩৫ হাজার টাকা। অন্যান্য খাতে স্বামীর কোনো আয় না থাকলেও লিপি আয় করেন ৫৭ হাজার টাকা।

অস্থাবর সম্পত্তির মধ্যে লিপির নগদ টাকা ২৮ লাখ ৪৮ হাজার। তাঁর স্বামীর কাছে নগদ টাকা ২ কোটি ১৩ লাখ ৮৯ হাজার। পুলিশ কর্মকর্তা মিলনের ব্যাংকে ৪১ হাজার ৯১৭ টাকা আছে। লিপির আছে ১২ লাখ ৫৩ হাজার টাকা। লিপির চেয়ে তাঁর স্বামী বেশি অলংকার ব্যবহার করেন।লিপির ১০ তোলা অলংকার থাকলেও স্বামী ব্যবহার করেন ৫০ তোলা।

হলফনামায় উল্লেখ করা হয়েছে, লিপির ২৫৯ দশমিক ৬৯ শতক জমি আছে, যার দাম ৪৪ লাখ ৫৬ হাজার টাকা। তাঁর স্বামীর কৃষিজমি আছে ১২১৪ শতক। এই জমির দাম ৪ লাখ টাকা। এ ছাড়া লিপির ১০১ দশমিক ৫৭ শতক অকৃষি জমি আছে, যার দাম ২৬ লাখ ১০ হাজার টাকা। তাঁর স্বামীর ২৫২ দশমিক ৫৩৬ শতক অকৃষি জমি আছে। এর মূল্য ১ কোটি ১৫ লাখ টাকা।

স্থাবর সম্পদের মধ্যে লিপির আছে একটি পাচতলা দালান। এটি হেবা সূত্রে পাওয়া বলে উল্লেখ করেছেন। আছে নির্মাণাধীন আরও একটি বাড়ি। রয়েছে তিনটি দোকান। লিপির স্বামীর রয়েছে একটি পাঁচতলা দালান, একটি আধাপাকা বাড়ি। তবে এগুলো হেবা বা দান সূত্রে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ কারণে কোনো মূল্য উল্লেখ করা হয়নি।

শাহাজাদী আলম লিপি বলেন, ‘আমি ব্যবসা করি। ব্যবসা থেকে কোটিপতি হয়েছি। এলাকায় বেশ আগে থেকেই প্রচার চালাই এই তথ্যটিও সত্য। তবে এলাকার মানুষ ভালোবেসে এসব প্রচারের টাকা খরচ করে। আমাদের কোনো টাকা খরচ করতে হয় না।’ এই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য সাহাদারা মান্নান।