• ক্যাম্পাস

    রাবিতে শুরু হতে যাচ্ছে লেখক-পাঠকদের অন্যতম আসর ‘চিহ্নমেলা’

      প্রতিনিধি ১৫ অক্টোবর ২০২২ , ২:৫৩:০০ প্রিন্ট সংস্করণ

    বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক, রাবি:

    পঞ্চমবারের মতো রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) শুরু হতে যাচ্ছে সাহিত্যপত্রিকা ‘চিহ্ন’র আয়োজনে লেখক-পাঠকদের অন্যতম আসর ‘চিহ্নমেলা’র। আগামী ১৭ ও ১৮ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় শহীদুল্লাহ কলাভবন প্রাঙ্গণে এই আসর বসতে যাচ্ছে। এরই মধ্যে মেলার সব ধরনের প্রস্তুতি প্রায় শেষের পথে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

    এবারের ‘চিহ্নমেলা মুক্তবাংলা’ নামে আসরটি বসবে। এই আসরে দেশি-বিদেশি প্রায় ২০০টি লিটিল ম্যাগাজিনসহ চার শতাধিক লেখক-পাঠক-সম্পাদক অংশ নেবেন। প্রতিবেশী দেশ ভারতের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বাংলা ভাষাভাষী প্রায় দেড় শতাধিক লেখক, সম্পাদক ও তাত্ত্বিক এতে অংশ নেবেন। এই মেলায় প্রায় দুই শতাধিক স্টল বসবে।

    মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন পশ্চিম বাংলার প্রখ্যাত লিটিলম্যাগ ব্যক্তিত্ব সন্দীপ দত্ত, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত কবি নির্মলেন্দু গুণ, প্রাবন্ধিক ও অর্থনীতিবিদ সনৎকুমার সাহা ও কবি জুলফিকার মতিন।

    এবারের আসরের মূল অনুষ্ঠানের প্রথমেই স্মরণ করা হবে প্রয়াত প্রতিথযশা লেখকদের। কবি লেখক, বাংলা একাডেমির পরিচালক আমিনুর রহমান সুলতানের সঞ্চালনায় ‘প্রয়াত-প্রিয়জন’ শীর্ষক এই পর্বে শঙ্খ ঘোষ, সৈয়দ শামসুল হক, দেবেশ রায়, আনিসুজ্জামান, হাসান আজিজুল হকের স্মৃতিচারণ করবেন নির্মলেন্দু গুণ, সনৎকুমার সাহা, জুলফিকার মতিন, রুহুল আমিন প্রামাণিক, ইমানুল হক ও অমল সরকার।

    এর পরেই অধ্যাপক, প্রাবন্ধিক মোহাম্মদ আজম ‘সৃষ্টিশীলতার সমাজতত্ত্ব ও লিটিলম্যাগ’ নিয়ে একক বক্তৃতা করবেন। অনুবাদ প্রসঙ্গ নিয়ে কথাসাহিত্যিক মোজাফ্ফর হোসেনের সঞ্চালনায় কথা বলবেন আলম খোরশেদ, শরীফ আতিক-উজ-জামান, সফিকুল ইসলাম, প্রত্যয় হামিদ ও মুহম্মদ মুহসীন।

    মেলায় মামুন মুস্তাফার সঞ্চালনায় দুই বাংলার কবিতা ও গল্পপাঠে অংশ নেবেন সৈকত হাবিব, আসাদ মান্নান, জফির সেতু, বদরে মুনীর, শামীম হোসেন, নৃপেন চক্রবর্তী, সিরাজদৌলা বাহার, অলোক বিশ্বাস, কামরুল বাহার আরিফ, শিবলী মুক্তাদির, সরোজ দেব, গাজী লতিফ, দ্বিজেন্দ্র ভৌমিক, মাহবুব বারী, কামরুজ্জামান গোপন, শাম্স সুমন, কুমার দীপ, অভিজিৎ বিশ্বাস, নাজমুল হাছান সুমন, মাসউদ আখতার, আনিফ রুবেদ, সরকার মাসুদ, মঈন শেখ, সুবন্ত যায়েদ প্রমুখ।

    প্রথম দিনের সাংস্কৃতিক সন্ধ্যায় বাঁশি বাজাবেন প্রখ্যাত বংশিবাদক হাসন রাজা, সংগীত পরিবেশন করবেন কাঙালিনী সুফিয়া।

    দ্বিতীয় দিনে চিহ্ন পুরস্কার প্রদান করা হবে। এরপরে সন্ধ্যায় বাউল ঘরানার গানের দল ‘মাতাল’র পরিবেশনার মাধ্যমে চিহ্নের দুই দিনের আয়োজনের সমাপ্তি হবে।

    মেলার আয়োজক পর্ষদের সদস্য সাদ্দাম হোসাইন জানান, এবার মেলায় দেশের বাইরে থেকে যোগ দিচ্ছেন প্রায় শতাধিক লেখক-সম্পাদক। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলা থেকে প্রায় একশোটির মতো লিটিল ম্যাগাজিন মেলায় অংশগ্রহণের জন্য চূড়ান্ত সম্মতি জানিয়েছেন। আর দেশের ভেতর থেকে প্রায় তিনশতাধিক লেখক-কবি-সাহিত্যক ও তাত্ত্বিক অংশ নেবেন।

    আয়োজক পর্ষদের আরেক সদস্য ড. তবিবুর রহমান জানান, মেলা অনুষ্ঠিত হওয়ার প্রায় এক বছর আগে থেকে আমরা মেলায় সম্ভব্য অংশগ্রহণকারীর একটি তালিকা প্রস্তুত করি। তারপর তাদের সঙ্গে প্রাথমিক যোগাযোগ ছয়মাস আগে শুরু করি। মেলার একমাস আগে তাদের কাছে চূড়ান্ত সম্মতি নেওয়া হয়। এবারের আয়োজনের প্রায় ৯০ ভাগ প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। আশা করি, সকলের অংশগ্রহণে আমরা এটি সফলভাবে উদযাপন করতে পারবো।

    মেলার আয়োজনের সার্বিক বিষয়ে চিহ্ন পত্রিকার সম্পাদক ও চিহ্নপ্রধান অধ্যাপক শহীদ ইকবাল বলেন, মেলাটি সকলের জন্য উন্মুক্ত। আমাদের আয়োজনের যে পর্বগুলো রয়েছে সেগুলোতে সকলেই অংশগ্রহণ করতে পারবেন। যেকেউ আসতে পারবেন। আমরা সমকালীন লেখালেখি আর বুদ্ধিবৃত্তিক বোঝাপড়ার বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করি। প্রতিটি ক্ষেত্রে ওই ধরনের কাজের সঙ্গে যুক্ত বিশেষজ্ঞ, নতুন চিন্তকদের নিয়ে আলোচনা পর্ব চলে। একধরনের সমাজটাকে, দেশটাকে বোঝার বিষয়টি উঠে আসে। এ ধরনের অনুষ্ঠানগুলোতে সকলের অংশগ্রহণের সুযোগ রয়েছে।

    প্রসঙ্গত , রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক, লেখক শহীদ ইকবালের সম্পাদনায় ‘চিহ্ন’ প্রায় দুই দশক থেকে নিয়মিত বের হচ্ছে। পত্রিকাটি ২০১১ সালে প্রথমবারের মতো দেশের লেখক-লিটিল ম্যাগাজিনের সম্পাদক আর বুদ্ধিবৃত্তির মানুষদের নিয়ে আয়োজন করে চিহ্নমেলার। এর ধারাবাহিকতায় ২০১৩,২০১৬, ২০১ এবং এবার ২০২২ সালে পঞ্চমবারের মতো এই মেলার আসর বসতে যাচ্ছে।

    http://এইচ/কে

    আরও খবর

                       

    জনপ্রিয় সংবাদ