ঢাকা ০৬:৩৩ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুর্গাপুরে ৬ প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত শ্রীপুরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২০, আটক ৪, বাড়িঘর ভাংচুর চৌদ্দগ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে আহত স্কুল শিক্ষার্থী নিরবের পাশে আনন্দ সংঘ ১৫টি গ্রামের মানুষ ব্যপক দূর্ভোগে ৪বছরেও ভাঙা সেতু হয়নি মেরামত আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে উচ্চস্বরে মাইক বাজানোর দায়ে প্রার্থীর মাইক বক্স জব্দ শেষ মুহুর্তে ব্যপক প্রচারণায় ব্যস্ত দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাচনের প্রার্থীরা মানবসেবার আড়ালে প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত মিল্টন সমাদ্দারকে আটক করেছে ডিবি দুর্গাপুরে নানা আয়োজনে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস ২০২৪ পালিত ভোলার তজুমদ্দিনে আগুনে পুড়ে ১৫ টি দোকান ছাই ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি থেকে মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হলেন সিফাত
সংবাদ শিরোনাম ::
উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দুর্গাপুরে ৬ প্রার্থীর জামানত বাজেয়াপ্ত শ্রীপুরে দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ২০, আটক ৪, বাড়িঘর ভাংচুর চৌদ্দগ্রামে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে আহত স্কুল শিক্ষার্থী নিরবের পাশে আনন্দ সংঘ ১৫টি গ্রামের মানুষ ব্যপক দূর্ভোগে ৪বছরেও ভাঙা সেতু হয়নি মেরামত আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে উচ্চস্বরে মাইক বাজানোর দায়ে প্রার্থীর মাইক বক্স জব্দ শেষ মুহুর্তে ব্যপক প্রচারণায় ব্যস্ত দুর্গাপুর উপজেলা নির্বাচনের প্রার্থীরা মানবসেবার আড়ালে প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত মিল্টন সমাদ্দারকে আটক করেছে ডিবি দুর্গাপুরে নানা আয়োজনে জাতীয় আইনগত সহায়তা দিবস ২০২৪ পালিত ভোলার তজুমদ্দিনে আগুনে পুড়ে ১৫ টি দোকান ছাই ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতি থেকে মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হলেন সিফাত

কক্সবাজারে দুর্গাপূজায়/ কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:০৮:০৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২
  • / ৩৬২৪ বার পড়া হয়েছে
বাংলাদেশের বার্তা অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আজিজ উদ্দিন।।

কক্সবাজার জেলার ৩০৬টি দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুরো জেলাব্যাপী থাকবে প্রশাসনের বড় একটা টিম।

এই টিমটি জেলায় দুর্গাপূজা চলাকালীন সময়ে এবং সমুদ্র সৈকতে বিসর্জন অনুষ্ঠান শেষ না হওয়া পর্যন্ত আজ ১ অক্টোবর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার ব্যবস্থা করবেন। এবিষয়ে জনস্বার্থে একটি আদেশ জারি করেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসন।

জানা গেছে, শারদীয় দুর্গাপূজা চলাকালীন সময়ে সার্বিক ব্যবস্থাপনা ও কার্যক্রম তদারকি করার জন্য পুরো জেলায় ২১ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট তদারকি করবেন।

এর মধ্যে কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ জাকারিয়া ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ জিল্লুর রহমান কক্সবাজার পৌরসভা ব্যতীত পুরো জেলায় তদারকি করবেন।

কক্সবাজার পৌর এলাকায় বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট নওশেন ইবনে হালিম, মোঃ তাজ উদ্দিন, রাবেয়া আসফার সায়মা, মোঃ আশিক খান, শুভাশীষ চাকমা, মোঃ রাইসুল ইসলাম, মাসুম বিল্লাহ, সৈয়দজাদী মাহবুবা মঞ্জুর মৌনা সহ ৮ জন সার্বক্ষণিক তদারকিতে থাকবেন।

চকরিয়া উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট জেপি দেওয়ান ও মোঃ রাহাত উজ জামান। একইভাবে মহেশখালীতে থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইয়াছিন ও মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

রামু উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ফাহমিদা মুস্তফা ও নিরুপম মজুমদার। একইভাবে উখিয়া থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ইমরান হোসাইন সজীব ও সালেহ আহমেদ। পেকুয়া উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট পূর্বিতা চাকমা।

কুতুবদিয়া উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট দীপংকর তঞ্চঙ্গ্যা ও টেকনাফ উপজেলায় থাকবেন মোঃ এরফানুল হক চৌধুরী।
জেলা পূজা পরিষদের সভাপতি উজ্জ্বল কর ও সাধারণ সম্পাদক বেন্টু দাশ বলেন, পূজার পাশাপাশি দেশে বৃহৎ প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানটি হয় কক্সবাজারে।

স্বাভাবিকভাবে কক্সবাজারে পূজারীদের পাশাপাশি অসাম্প্রদায়িক চেতনায় হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান সহ দেশি-বিদেশী পর্যটক কক্সবাজারে আসে। তাই পূজা এবং বির্সজন অনুষ্ঠানকে সুন্দর ও সু-শৃংখলভাবে উদযাপন করতে আমরা প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়ে আসছিলাম।

এছাড়াও কক্সবাজার ১৮টি পূজা মন্ডপ ঝুঁকিপূর্ণ। যা ইতিমধ্যে আমরা প্রশাসনকে অবগত করেছি। এরই প্রেক্ষিতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। জেলাব্যাপী প্রতিটি উপজেলা এবং কক্সবাজার পৌরসভা সহ ২১ জন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ সার্বক্ষণিক মাঠ থাকবেন বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

কক্সবাজারে দুর্গাপূজায়/ কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা 

আপডেট সময় : ০৯:০৮:০৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২

আজিজ উদ্দিন।।

কক্সবাজার জেলার ৩০৬টি দুর্গাপূজা উপলক্ষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। পুরো জেলাব্যাপী থাকবে প্রশাসনের বড় একটা টিম।

এই টিমটি জেলায় দুর্গাপূজা চলাকালীন সময়ে এবং সমুদ্র সৈকতে বিসর্জন অনুষ্ঠান শেষ না হওয়া পর্যন্ত আজ ১ অক্টোবর থেকে ৫ অক্টোবর পর্যন্ত কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করার ব্যবস্থা করবেন। এবিষয়ে জনস্বার্থে একটি আদেশ জারি করেন কক্সবাজার জেলা প্রশাসন।

জানা গেছে, শারদীয় দুর্গাপূজা চলাকালীন সময়ে সার্বিক ব্যবস্থাপনা ও কার্যক্রম তদারকি করার জন্য পুরো জেলায় ২১ জন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট তদারকি করবেন।

এর মধ্যে কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহী ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ জাকারিয়া ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ জিল্লুর রহমান কক্সবাজার পৌরসভা ব্যতীত পুরো জেলায় তদারকি করবেন।

কক্সবাজার পৌর এলাকায় বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট নওশেন ইবনে হালিম, মোঃ তাজ উদ্দিন, রাবেয়া আসফার সায়মা, মোঃ আশিক খান, শুভাশীষ চাকমা, মোঃ রাইসুল ইসলাম, মাসুম বিল্লাহ, সৈয়দজাদী মাহবুবা মঞ্জুর মৌনা সহ ৮ জন সার্বক্ষণিক তদারকিতে থাকবেন।

চকরিয়া উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট জেপি দেওয়ান ও মোঃ রাহাত উজ জামান। একইভাবে মহেশখালীতে থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ ইয়াছিন ও মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

রামু উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ফাহমিদা মুস্তফা ও নিরুপম মজুমদার। একইভাবে উখিয়া থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট ইমরান হোসাইন সজীব ও সালেহ আহমেদ। পেকুয়া উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট পূর্বিতা চাকমা।

কুতুবদিয়া উপজেলা থাকবেন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট দীপংকর তঞ্চঙ্গ্যা ও টেকনাফ উপজেলায় থাকবেন মোঃ এরফানুল হক চৌধুরী।
জেলা পূজা পরিষদের সভাপতি উজ্জ্বল কর ও সাধারণ সম্পাদক বেন্টু দাশ বলেন, পূজার পাশাপাশি দেশে বৃহৎ প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানটি হয় কক্সবাজারে।

স্বাভাবিকভাবে কক্সবাজারে পূজারীদের পাশাপাশি অসাম্প্রদায়িক চেতনায় হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান সহ দেশি-বিদেশী পর্যটক কক্সবাজারে আসে। তাই পূজা এবং বির্সজন অনুষ্ঠানকে সুন্দর ও সু-শৃংখলভাবে উদযাপন করতে আমরা প্রশাসনের সহযোগিতা চেয়ে আসছিলাম।

এছাড়াও কক্সবাজার ১৮টি পূজা মন্ডপ ঝুঁকিপূর্ণ। যা ইতিমধ্যে আমরা প্রশাসনকে অবগত করেছি। এরই প্রেক্ষিতে কক্সবাজার জেলা প্রশাসন কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন। জেলাব্যাপী প্রতিটি উপজেলা এবং কক্সবাজার পৌরসভা সহ ২১ জন বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ সার্বক্ষণিক মাঠ থাকবেন বলে আমাদেরকে জানিয়েছেন।