ঢাকা ১০:২০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
শ্রীপুরে ঈদ পুনর্মিলনী ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত ঢাকার বুকে মাগুরা জেলার প্রতিনিধিত্বকারী এক গর্ব ও অহংকারের নাম মাগুরা লায়ন্স ক্রিকেট ক্লাব শ্রীপুরে সবুজ আন্দোলনের ঈদ সামগ্রী বিতরণ বিআরটিসির বাসেও চলছে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় সৌদির সঙ্গে কাল বাংলাদেশেও হতে পারে ঈদ শ্রীপুরে দেশ ও প্রবাসী সমন্বয় কল্যাণ তহবিলের ঈদ সামগ্রী বিতরণ বেইলি রোডে অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানাল ফায়ার সার্ভিস চৌদ্দগ্রামে আলকরা প্রবাসী কল্যাণ’র উদ্যাগে ইমাম খতিবদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরন ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত ফ্রিতে সিম কিনে বিপাকে অর্ধশত পরিবার ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে নতুন ছাত্র উপদেষ্টার দায়িত্ব হস্তান্তর
ব্রেকিং নিউজ ::

 ৭কলেজের ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু: ২১ মার্চ ২০২৪,আবেদন শেষ: ২৫ এপ্রিল ২০২৪ * এ বছর জনপ্রতি ফিতরার হার সর্বনিন্ম ১১৫ টাকা এবং সর্বোচ্চ ২৯৭০ টাকা *

তিতাসে নয়াচর- খলিলাবাদ খালের উপর নির্মিত কালভার্টটি কৃষকদের গলারকাটা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৩১:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৫ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৩৫৯৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলাদেশের বার্তা অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

হালিম সৈকত, কুমিল্লা।।

কুমিল্লার তিতাস উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নে অবস্থিত নয়াচর- খলিলাবাদ খালের উপর নির্মিত কালভার্টটি এখন কৃষকদের গলারকাটা।

এই খালটি পানি নিষ্কাশন ও ইরিগ্রেশনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। উক্ত খালের খলিলাবাদ অংশে (আসমানিয়া বাজারের) পূর্ব পাশে মজিবুর রহমানের বাড়ির দক্ষিণে মাত্র ৪ ফুট উচ্চতায় ৫০ ফুট দৈর্ঘের একটি কালভার্ট নির্মাণ করা হয় ২০১০-১২ সালে, যার সাথে উত্তর দিকে কোন সংযোগ সড়ক নাই।

বর্তমানে খালটি পানি উন্নয়নবোর্ড কর্তৃক পুনঃখনন কাজ চলছে। খালের গভীরতা ১০/১২ ফুট আর কালভার্টটির গভীরতা মাত্র ৪ ফুট। তাই কালর্ভাট টি সরানো জরুরী বলে মনে করছেন সাধারণ কৃষক ও জনগণ। কারণ কালভার্ট টি না সরালে খাল খননের উপকারিতা এলাকার জনগণ, কৃষক ভোগ করতে পারবে না।

এই বিষয়ে ৭ নং নারান্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আরিফুজ্জামান ভূইয়া খোকা কালভার্টটি অপসারণের জন্য তিতাস উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর দরখাস্ত করেছেন। এই বিষয়ে তিনি বলেন, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নাহার পারভীন ক্ষমতার অপ-ব্যবহার করে ব্যক্তি স্বার্থে কালভার্টটি তৈরি করেছেন। যা সরকারি অর্থের অপচয়। সরকারি জায়গায় দখল ও ভোগ করার হীন উদ্দেশ্যে তিনি কাজটি করেছেন। যা বর্তমানে ভাঙ্গা ছাড়া কোন গতান্তর নেই।

এই বিষয়ে সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নাহার পারভীন বলেন, আমি জনগণের স্বার্থে অনেক চেষ্টার পর কালভার্টটি নির্মাণ করেছি। ভিটিকান্দি ও নারান্দিয়া ইউনিয়নের জনগণ এর সুবিধাভোগী। আমার ব্যক্তিগত কোন স্বার্থ এখানে জড়িত নয়। এখন সরকার যদি কালভার্টটি ভেঙ্গে ফেলে আমার কোন আপত্তি নেই। তবে ভাঙ্গলে জনসাধারণের বেশ অসুবিধা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

তিতাসে নয়াচর- খলিলাবাদ খালের উপর নির্মিত কালভার্টটি কৃষকদের গলারকাটা

আপডেট সময় : ০৮:৩১:০৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ৫ এপ্রিল ২০২৩

হালিম সৈকত, কুমিল্লা।।

কুমিল্লার তিতাস উপজেলার নারান্দিয়া ইউনিয়নে অবস্থিত নয়াচর- খলিলাবাদ খালের উপর নির্মিত কালভার্টটি এখন কৃষকদের গলারকাটা।

এই খালটি পানি নিষ্কাশন ও ইরিগ্রেশনের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। উক্ত খালের খলিলাবাদ অংশে (আসমানিয়া বাজারের) পূর্ব পাশে মজিবুর রহমানের বাড়ির দক্ষিণে মাত্র ৪ ফুট উচ্চতায় ৫০ ফুট দৈর্ঘের একটি কালভার্ট নির্মাণ করা হয় ২০১০-১২ সালে, যার সাথে উত্তর দিকে কোন সংযোগ সড়ক নাই।

বর্তমানে খালটি পানি উন্নয়নবোর্ড কর্তৃক পুনঃখনন কাজ চলছে। খালের গভীরতা ১০/১২ ফুট আর কালভার্টটির গভীরতা মাত্র ৪ ফুট। তাই কালর্ভাট টি সরানো জরুরী বলে মনে করছেন সাধারণ কৃষক ও জনগণ। কারণ কালভার্ট টি না সরালে খাল খননের উপকারিতা এলাকার জনগণ, কৃষক ভোগ করতে পারবে না।

এই বিষয়ে ৭ নং নারান্দিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আরিফুজ্জামান ভূইয়া খোকা কালভার্টটি অপসারণের জন্য তিতাস উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর দরখাস্ত করেছেন। এই বিষয়ে তিনি বলেন, সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নাহার পারভীন ক্ষমতার অপ-ব্যবহার করে ব্যক্তি স্বার্থে কালভার্টটি তৈরি করেছেন। যা সরকারি অর্থের অপচয়। সরকারি জায়গায় দখল ও ভোগ করার হীন উদ্দেশ্যে তিনি কাজটি করেছেন। যা বর্তমানে ভাঙ্গা ছাড়া কোন গতান্তর নেই।

এই বিষয়ে সাবেক মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নুরুন্নাহার পারভীন বলেন, আমি জনগণের স্বার্থে অনেক চেষ্টার পর কালভার্টটি নির্মাণ করেছি। ভিটিকান্দি ও নারান্দিয়া ইউনিয়নের জনগণ এর সুবিধাভোগী। আমার ব্যক্তিগত কোন স্বার্থ এখানে জড়িত নয়। এখন সরকার যদি কালভার্টটি ভেঙ্গে ফেলে আমার কোন আপত্তি নেই। তবে ভাঙ্গলে জনসাধারণের বেশ অসুবিধা হবে।