ঢাকা ০৭:৩৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম ::
দুর্গাপুরে আওয়ামী লীগের কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত অবিবাহিত তরুণীর নামে মাতৃত্বকালীন ভাতা নেন চেয়ারম্যান  শ্রীপুরে পীর-আওলিয়ার মাজার জিয়ারতের মধ্যদিয়ে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করলেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী রাজন যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের পুরস্কার পেলেন কুবির চার শিক্ষার্থী জাতীয় পদক প্রাপ্ত সাবেক প্রধান শিক্ষক কাজী ফয়জুর রহমানের দাফন সম্পন্ন শ্রীপুরে ঈদ পুনর্মিলনী ক্রিকেট টুর্নামেন্ট অনুষ্ঠিত ঢাকার বুকে মাগুরা জেলার প্রতিনিধিত্বকারী এক গর্ব ও অহংকারের নাম মাগুরা লায়ন্স ক্রিকেট ক্লাব শ্রীপুরে সবুজ আন্দোলনের ঈদ সামগ্রী বিতরণ বিআরটিসির বাসেও চলছে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় সৌদির সঙ্গে কাল বাংলাদেশেও হতে পারে ঈদ
ব্রেকিং নিউজ ::

 ৭কলেজের ২০২৩-২৪ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষার আবেদন শুরু: ২১ মার্চ ২০২৪,আবেদন শেষ: ২৫ এপ্রিল ২০২৪ * এ বছর জনপ্রতি ফিতরার হার সর্বনিন্ম ১১৫ টাকা এবং সর্বোচ্চ ২৯৭০ টাকা *

মোখা মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রস্তুতিমূলক সভা 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৯:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩
  • / ৩৬০৬ বার পড়া হয়েছে
বাংলাদেশের বার্তা অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

আজিজ উদ্দিন।।

ঘূর্ণিঝড় মোখা মোকাবেলার জন্য কক্সবাজার জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শুক্রবার (১২ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় জেলা প্রশাসকের শহিদ এটিএম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহীন ইমরানের সভাপতিত্বে প্রস্তুতিমূলক সভা হয়।

এতে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এড. সিরাজুল মোস্তফা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. মো. মাহবুবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক বিভীষণ কান্তি দাস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মানব সম্পদ ব্যাবস্থাপনা নাসিম আহমেদ, কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল, কক্সবাজার, প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।

এসময় কক্সবাজারের সরকারি দপ্তর, বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহীন ইমরান বলেন, সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড় মোখা মোকাবেলায় জেলা প্রশাসন কতটুকু প্রস্তুত এবং কোন ঘাটতি আছে কিনা এটা জানানোর জন্যই এ সভা আহবান করা হয়েছে।

এছাড়া তিনি সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড় মোখা মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসন প্রস্তুত আছে জানিয়ে তিনি বলেন, কক্সবাজারে ৫৭৬ টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলায় ৮ হাজার ৬০০ স্বেচ্ছাসেবক, রেড ক্রিসেন্টের ২ হাজার ২০০ স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া শুকনো খাবার এবং প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র উপজেলাগুলোতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং পর্যাপ্ত খাবার ও নগদ টাকা মজুদ আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

মোখা মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রস্তুতিমূলক সভা 

আপডেট সময় : ০৩:৫৯:৪৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ মে ২০২৩

আজিজ উদ্দিন।।

ঘূর্ণিঝড় মোখা মোকাবেলার জন্য কক্সবাজার জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

শুক্রবার (১২ মে) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার সময় জেলা প্রশাসকের শহিদ এটিএম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহীন ইমরানের সভাপতিত্বে প্রস্তুতিমূলক সভা হয়।

এতে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এড. সিরাজুল মোস্তফা, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান, সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. মো. মাহবুবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক বিভীষণ কান্তি দাস, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মানব সম্পদ ব্যাবস্থাপনা নাসিম আহমেদ, কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কায়সারুল হক জুয়েল, কক্সবাজার, প্রেসক্লাবের সভাপতি আবু তাহের চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।

এসময় কক্সবাজারের সরকারি দপ্তর, বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এসময় জেলা প্রশাসক মুহম্মদ শাহীন ইমরান বলেন, সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড় মোখা মোকাবেলায় জেলা প্রশাসন কতটুকু প্রস্তুত এবং কোন ঘাটতি আছে কিনা এটা জানানোর জন্যই এ সভা আহবান করা হয়েছে।

এছাড়া তিনি সম্ভাব্য ঘূর্ণিঝড় মোখা মোকাবেলায় কক্সবাজার জেলা প্রশাসন প্রস্তুত আছে জানিয়ে তিনি বলেন, কক্সবাজারে ৫৭৬ টি আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জেলায় ৮ হাজার ৬০০ স্বেচ্ছাসেবক, রেড ক্রিসেন্টের ২ হাজার ২০০ স্বেচ্ছাসেবক প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া শুকনো খাবার এবং প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র উপজেলাগুলোতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং পর্যাপ্ত খাবার ও নগদ টাকা মজুদ আছে।