ঢাকা ০৪:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৭ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
ব্রেকিং নিউজ ::
চৌদ্দগ্রামে নামাজরত অবস্থায় ইমামকে কুপিয়ে জখম রাখাইনে সংঘাত ও সেন্টমার্টিন পরিস্থিতি | ব্রিঃ জেঃ হাসান মোঃ শামসুদ্দীন (অবঃ) নীলফামারীতে মাদ্রাসার শিক্ষককে কুপিয়ে জখম  চৌদ্দগ্রামে দাফনের ৭ দিন পর বাড়ি ফিরলেন রোকসানা নামের এক তরুণী নৌকা বিকল হয়ে মেঘনায় আটকে ছিল সাত ছাত্র, ৯৯৯ নম্বরে ফোন কলে উদ্ধার শ্রীপুরে ক্যাপিটেশন প্লান্টের চেক বিতরণ কথা বলছে’ গাছ, ভেসে আসছে নারী কণ্ঠের আর্তনাদ বাইশরশি বিশ্ব জাকের মঞ্জিলে জাকের পার্টির ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত চৌদ্দগ্রামে গাঁজা-ইয়াবা উদ্ধার, কথিত সাংবাদিকসহ আটক ১৩ স্বাধীনতার আগে মারা যাওয়া ব্যক্তিকে ২০১৫ সালে ঋণ দিয়েছে কৃষি ব্যাংক

ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত বসার জায়গা নেই, ক্ষোভ জবি শিক্ষার্থীদের

বাংলাদেশের বার্তা
  • আপডেট সময় : ০৫:৩৮:১৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ এপ্রিল ২০২৩
  • / ৯৫৯৭ বার পড়া হয়েছে
বাংলাদেশের বার্তা অনলাইনের সর্বশেষ নিউজ পেতে অনুসরণ করুন গুগল নিউজ (Google News) ফিডটি

রায়হান খাঁন। 

ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত বসার জায়গা চান জবি শিক্ষার্থীরা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থীর বিপরীতে নেই পর্যাপ্ত বসার জায়গা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নামমাত্র দুই-তিনটি জায়গায় বসার ব্যবস্থা রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে শিক্ষার্থীদের। প্রতিষ্ঠার ১৭বছরেও ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত বসার জায়গা তৈরী না হওয়ার বিষয়টিকে অন্যতম প্রধান মৌলিক সংকট বলে দাবি তাদের।

সকাল সাড়ে আটটা থেকে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়ে বিকাল ৩টা পর্যন্ত চলে। ক্লাস-পরীক্ষার গ্যাপে বা শেষে একসাথে বসে একটু আড্ডা দেয়ারও তেমন সুযোগ থাকেনা জায়গার অভাবে৷ সরেজমিনে দেখা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করতেই সামনে পড়ে শান্ত চত্বর।

একমাত্র এই চত্বরেই বসার সুযোগ রয়েছে শিক্ষার্থীদের৷ ভাষা শহীদ রফিক ভবন,বিজ্ঞান অনুষদ চত্বরে নেই তেমন কোন বসার জায়গা। প্রশাসনিক ভবনের পেছনে ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ চত্বর এবং কাঁঠালতলায় রয়েছে নাম মাত্র কয়েকটি ঢালাই দেয়া সিট। এছাড়া সমগ্র ক্যাম্পাস জুড়ে পর্যাপ্ত বসার জায়গা নেই। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস জুড়ে হাঁটাচলা।

শিক্ষার্থীরা বলেন, আমাদের ক্যাম্পাসে জায়গা কম সেটা ঠিক। তবে সেখানেও সুপরিকল্পিতভাবে বসার জায়গা নির্মাণ করা যাবে৷ বিজ্ঞান অনুষদ চত্বরে ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ চত্বরে স্থাপনা তৈরী করতে পারে প্রশাসন। এতে অন্তত বসার একটু সুযোগ হবে আমাদের।

এ বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আইনুল ইসলাম বলেন,আসলে আমাদের ক্যাম্পাসে যথেষ্ট স্পেস নেই। এ কারণে আমরা বসার জায়গা করার ইচ্ছা স্বত্তেও তৈরী করতে পারছিনা। কিছুদিন আগেও ক্যান্টিনের পাশে একটু কাজ করেছি যাতে শিক্ষার্থীরা বসতে পারে। পরের বছর চেষ্টা করবো আরো কিছু কাজ করতে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :

ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত বসার জায়গা নেই, ক্ষোভ জবি শিক্ষার্থীদের

আপডেট সময় : ০৫:৩৮:১৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১ এপ্রিল ২০২৩

রায়হান খাঁন। 

ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত বসার জায়গা চান জবি শিক্ষার্থীরা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ে (জবি) প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থীর বিপরীতে নেই পর্যাপ্ত বসার জায়গা। বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে নামমাত্র দুই-তিনটি জায়গায় বসার ব্যবস্থা রয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে শিক্ষার্থীদের। প্রতিষ্ঠার ১৭বছরেও ক্যাম্পাসে পর্যাপ্ত বসার জায়গা তৈরী না হওয়ার বিষয়টিকে অন্যতম প্রধান মৌলিক সংকট বলে দাবি তাদের।

সকাল সাড়ে আটটা থেকে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হয়ে বিকাল ৩টা পর্যন্ত চলে। ক্লাস-পরীক্ষার গ্যাপে বা শেষে একসাথে বসে একটু আড্ডা দেয়ারও তেমন সুযোগ থাকেনা জায়গার অভাবে৷ সরেজমিনে দেখা যায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটক দিয়ে প্রবেশ করতেই সামনে পড়ে শান্ত চত্বর।

একমাত্র এই চত্বরেই বসার সুযোগ রয়েছে শিক্ষার্থীদের৷ ভাষা শহীদ রফিক ভবন,বিজ্ঞান অনুষদ চত্বরে নেই তেমন কোন বসার জায়গা। প্রশাসনিক ভবনের পেছনে ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ চত্বর এবং কাঁঠালতলায় রয়েছে নাম মাত্র কয়েকটি ঢালাই দেয়া সিট। এছাড়া সমগ্র ক্যাম্পাস জুড়ে পর্যাপ্ত বসার জায়গা নেই। অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস জুড়ে হাঁটাচলা।

শিক্ষার্থীরা বলেন, আমাদের ক্যাম্পাসে জায়গা কম সেটা ঠিক। তবে সেখানেও সুপরিকল্পিতভাবে বসার জায়গা নির্মাণ করা যাবে৷ বিজ্ঞান অনুষদ চত্বরে ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ চত্বরে স্থাপনা তৈরী করতে পারে প্রশাসন। এতে অন্তত বসার একটু সুযোগ হবে আমাদের।

এ বিষয়ে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. মো. আইনুল ইসলাম বলেন,আসলে আমাদের ক্যাম্পাসে যথেষ্ট স্পেস নেই। এ কারণে আমরা বসার জায়গা করার ইচ্ছা স্বত্তেও তৈরী করতে পারছিনা। কিছুদিন আগেও ক্যান্টিনের পাশে একটু কাজ করেছি যাতে শিক্ষার্থীরা বসতে পারে। পরের বছর চেষ্টা করবো আরো কিছু কাজ করতে।